খাগড়াছড়ি জেলা স্বাস্থ্য অধিকার ফোরামের উদ্যোগে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস-২০২২ পালন

খাগড়াছড়ি জেলা স্বাস্থ্য অধিকার ফোরামের উদ্যোগে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস-২০২২ পালন

২৮ জানুয়ারি ২০২২ সকাল ১১:০০ টায় খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলাধীন ধুমনীঘাট কমিউনিটি ক্লিনিকে বাংলাদেশ হেলথ ওয়াচ-এর সহযোগিতায় এবং খাগড়াছড়ি জেলা ও মহালছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য অধিকার ফোরাম এর যৌথ উদ্যোগে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস উদযাপন করা হয়।

মহালছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য অধিকার ফোরামের সভাপতি মো: শাহজাহান পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে এবং জাবারাং সংস্থার কর্মসুচি সমন্বয়কারী বিনোদন ত্রিপুরার শুভেচ্ছা বক্তব্যের মধ্য দিয়ে সূচিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ১নং মহালছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রতন কুমার শীল, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা স্বাস্থ্য অধিকার ফোরামের সভাপতি সাধন কুমার চাকমা ও ধুমনীঘাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিউটি রাণী ত্রিপুরা প্রমুখ।

এসময় আরো যারা উপস্থিত ছিলেন, মহালছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর উপ-সহকারী মেডিকেল অফিসার রিপল বাপ্পী চাকমা, ধুমনীঘাট কমিউনিটি ক্লিনিক সভাপতি ও পাড়া কার্বারী কর্মচান ত্রিপুরা এবং জাবারাং কল্যাণ সমিতির কর্মসুচি সমন্বয়কারী ও বাংলাদেশ হেলথ ওযাচের সাথে জাবারং এর ফোকালপার্সন বিনোদন ত্রিপুরা।

খাগড়াছড়ি জেলা স্বাস্থ্য অধিকার ফোরামের উদ্যোগে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস-২০২২ পালন

প্রধান অতিথির বক্তব্যে চেয়ারম্যান বলেন, একজন মা নিরাপদভাবে যখনি সন্তান প্রসব করতে পারবেন তখন সমাজ, জাতি ও রাষ্ট্র একজন সুস্থ নাগরিক মানুষ পাব। আর তিনি যখন অসুস্থ বা অসম্পূর্ণ বিকলাঙ্গ শিশু জন্ম দেন তখনি সেই শিশু আমাদের সমাজে বা রাষ্ট্রে বোঝা হয়ে দাঁড়ায়। অতীব আনন্দের বিষয় হলো আমাদের পরিবারের মাতৃ স্বাস্থ্য পরিচর্যার জন্য সরকার মাতৃত্ব ভাতা চালু করেছে। সরকার দেশের নাগরিক সেবাদানের জন্য সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তাই আমাদেরকেও স্ব স্ব অবস্থান থেকে মাতৃস্বাস্থ্য উন্নয়নে ভূমিকা পালন করতে হবে বলে তিনি এলাকাবাসীর প্রতি উদ্বাত্ত আহ্বান জানান।

খাগড়াছড়ি জেলা স্বাস্থ্য অধিকার ফোরামের উদ্যোগে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস-২০২২ পালন

অতপর উপস্থিতি অংশগ্রহনকারীদের মধ্যে পরিচিতি পর্ব শুরু হয়। সভায় গর্ভবতী গর্ভকালীন সরাসরি সেবাগ্রহনকারী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ১৪জন এবং সাধারণ নারী সেবাগ্রহনকারী ১৩জন। এতে সেবাগ্রহনকারী, অতিথি ও আয়োজকসহ মোট ৬০জন অংশগ্রহণকারীর মধ্যে ১৪ জন নারী ও ৩৩ জন পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।

স্বাস্থ্য সেবা সম্পর্কিত সচেতনতা বিষয়ে বক্তব্য রাখেন জেলা স্বাস্থ্য অধিকার ফোরামের যুব সংগঠন বিষয়ক সম্পাদক মো: শাহাদাৎ হোসেন কায়েস, ধুমনীঘাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিউটি ত্রিপুরা, স্থানীয় এলাকার সেবা গ্রহণকারী ভূবনবালা ত্রিপুরা ও জেলা স্বাস্থ্য অধিকার ফোরামের সভাপতি সাধন কুমার চাকমা। মাতৃস্বাস্থ্য উন্নয়নে পুষ্টিকর খাবার, নিয়মিত চেকআপ ও বিশ্রামের কোন বিকল্প নেই। স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণের নূন্যতম ধারনা না থাকাতে দেশের অনেক মায়েরা ঠোঁট কাটা ও প্রতিবন্ধী শিশু জন্ম দিয়ে থাকে। বক্তারা বৈদ্য কবিরাজের চিকিৎসাকে উপেক্ষা করে আধুনিক চিকিৎসা সেবা গ্রহন করতে সকলকে হাসপাতালমূখী হওয়ার জন্য আহ্বান জানান। সভায় মহালছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর উপ-সহকারী মেডিকেল অফিসার রুপময় তঞ্চঙ্গ্যা আলোচক হিসেবে মাতৃ স্বাস্থ্য সেবা প্রদান ও গ্রহনের উপর সচেতনতামূলক পরামর্শ আলোকপাত করেন। তিনি গর্ভবতী নারীর গর্ভকালীন যত্ন নিতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি নিম্নের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের উপর আলোকপাত করেন।

  • নিরাপদ মাতৃত্ব সেবা: সন্তান প্রসবের দিন থেকে ৪৫ দিন পর্যন্ত গর্ভধারন থেকে প্রসব পর্যন্ত যত্ন।
  • গর্ভকালীন চেক আপ ৪ বার।
  • আয়রন ফোলেট ও ক্যালসিয়াম (ডাক্তারের পরামর্শ মতে)।
  • শারীরিক ও মানসিক প্রশান্তি।
  • স্বামী/পরিবারের অন্যান্য সদস্য কর্তৃক আন্তরিক সেবাদান।

সমাপনী: উপজেলা স্বাস্থ্য অধিকার ফোরামের সভাপতি শাহজাহান পাটোয়ারী বলেন, এটি একটি ব্যতিক্রম সমাজসেবা কর্মসুচি। এই কর্মসুচিতে সম্পৃক্ত হতে পেরে নিজেকে তিনি স্বার্থকতা মনে করেন। সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সমাজের দায়িত্বপূর্ণ ব্যক্তি মনে করেন। পূর্বে যারা পরামর্শমূলক বক্তব্য দিয়েছে এটি ্আমাদের জন্য বড় পাওয়া। সুস্থ জাতি গঠন করতে হলে আমাদের সুস্থ মা ও সুস্থ শিশু লাগবে। আজকের এ দিবস উদযাপনে যারা সম্পৃক্ত হয়ে অন্যন্য অবদান রেখেছেন শিক্ষক, তরুন যুব সমাজ ও মিডিয়াকর্মী সকলেই যেভাবে সময় দিয়েছেন এবং এই কাজের সাথে আগ্রহভরে সম্পৃক্ত হয়েছেন সকলকে ধন্যবাদ জানান। সবশেষে, ইঐড এর সহযোগিতায় এই পদযাত্রা যেন সুন্দর ও সফল হয় সেই কামনা করে এবং সকলের সু-স্বাস্থ্য কামনা করে সভা সমাপ্ত ঘোষনা করেন।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন জাবারাং কল্যাণ সমিতির প্রশাসনিক কর্মকর্তা ধনেশ্বর ত্রিপুরা।

Citizen's Voice

Sending...